ভুলে যাওয়া


গুরুত্বপূর্ণ কোনো ডকুমেন্ট কিংবা চাবি কোথায় রেখেছি মনে নেই! বাসা থেকে বের হয়ে মনে হলো মানিব্যাগটা সাথে আনা হয় নি! চলার পথে পরিচিত কারো সাথে দেখা হলো কিন্তু নামটাই ভুলে গেছি! আমরা সবাই মাঝে মাঝে এমন অনেক কিছু ভুলে যায়! কখনো কখনো কাজের সময় গুরুত্বপূর্ণ কিছু ভুলে গিয়ে মেজাজও হারিয়ে ফেলি। কিন্তু আমরা যদি ভুলে না যেতাম তাহলে কেমন হতো আমাদের ব্যাক্তি সমাজ কিংবা পারিবারিক জীবন?

আচ্ছা, ধরুন আমরা কোনোকিছু ভুলে যায় না! সন্তানের সাথে মা-বাবার ঝগড়া হয়েছে, স্বামীর সাথে স্ত্রীর কিংবা ভাইয়ের সাথে ভাইয়ের! যখনই তারা একে অপরের সামনে যেতো মনে হতো অতীতের ঝগড়ার কথা। কোনো বন্ধু বা পাড়া প্রতিবেশীর সাথে আপনার ঝগড়া হয়েছে, তার সামনে পরলে আপনার কেমন লাগতো?

আচ্ছা দরুন আপনার কোনো আপনজন আপনার সাথে খারাপ ব্যাবহার করেছে, তার সামনে গেলে কি ওই খারাপ আচরণটা মনে পরত না? তাহলে তার সাথে আপনি কি কখনো আন্তরিকতার সাথে চলতে পারতেন? কখনোই না। কারণ তার সামনে গেলেই অতীতের কথা মনে পরে যেত, তখন আর আন্তরিক ব্যাবহার করতে পারতেন না। এতে করে সকলের সাথে একপ্রকার মানসিক দূরত্ব সৃষ্টি হতো। কারো সাথে কোনো কারণে সম্পর্কের অবনতি ঘটলে, তা আর কখনো ঠিক হতো না! তাহলে ভাবুন তো তখন আমাদের সমাজ ব্যাবস্থাটা কেমন হতো?

ভাবতেই যেন কেমন ভয়ঙ্কর লাগছে। একটি দীর্ঘ শ্বাস ফেলে মনে হলো আমরা ভুলে যেতে পারি বলেই আমাদের সমাজ তথা পৃথিবীটা এতো সুন্দর। ভুলে যাওয়া যায় বলেই তো হাজারো ঝগড়ার পরও যুগের পর যুগ টিকে থাকে স্বামী-স্ত্রী কিংবা বন্ধুত্বের মতো সম্পর্কগুলো। আর তাই সব শেষে মনে হয় ভুলে যেতে পারাটা “মানব জাতির জন্য স্রষ্টার এক অনন্য উপহার”।

Leave a Reply

Your email address will not be published.