বাসচাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী নিহত হওয়ার ঘটনায় আজকের মতো অবরোধ তুলে নিয়েছেন বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরা। তবে আগামীকাল বুধবার সকাল থেকে তাঁরা আবার বিক্ষোভ করবেন।

সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে শিক্ষার্থীরা প্রগতি সরণি সড়কের যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে থেকে সরে যান। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বুধবার সকাল থেকে তাঁরা আবার অবস্থান নেবেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা বিক্ষোভ চালিয়ে যাবেন।

বাদ জোহর আবরারের বিশ্ববিদ্যালয় বিইউপিতে তাঁর জানাজা হয়। এরপর বনানী সামরিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। বিইউপির অতিরিক্ত পরিচালক (জনসংযোগ) মো. জাহাঙ্গীর কবির প্রথম আলোকে বলেছেন, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটায় বিইউপিতে ক্লাস ছিল আবরারের। ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন তিনি। ক্লাসে যাওয়ার জন্য সকাল সাড়ে সাতটার দিকে নর্দ্দায় যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা বিইউপির বাসে উঠতে যাচ্ছিলেন তিনি। এ সময় সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বাস তাঁকে চাপা দেয়। তিনি বাসের চাকায় পিষ্ট হন। পরে তাঁর লাশ সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

দুর্ঘটনার পর যমুনা ফিউচার পার্কের সামনের রাস্তা অবরোধ করেন আবরারের সহপাঠী, বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। তাঁরা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও দায়ী ব্যক্তিদের বিচার দাবিতে স্লোগান দেন। পরে প্রগতি সরণির দুই পাশের সড়ক অবরোধ করেন বিইউপিসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। তাঁরা আট দফা দাবি তুলে ধরেন এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে স্লোগানও দেন।