ট্টগ্রাম দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি মো. আইয়ুব খান প্রথম আলোকে বলেন, ২০১৪ সালের ১১ অক্টোবর ফুটবল খেলা দেখে ঘরে ফেরার পথে স্কুলছাত্র ইসমাইলকে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে দুই দিন পর বাড়ির পাশে লক্ষ্মীপুর ধানখেতে তার লাশটি পাওয়া যায়। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির বাবা আবুল হোসেন বাদী হয়ে চান্দিনা থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে পরের বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। গত বছরের ২ জুলাই আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে এই মামলার বিচার শুরু হয়। ১৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষে আদালত এই রায় দেন। এক প্রতিবেশীর অনৈতিক সম্পর্কের কথা জেনে ফেলায় ইসমাইলকে খুন করা হয় বলে পুলিশ জানায়ট্টগ্রাম দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি মো. আইয়ুব খান প্রথম আলোকে বলেন, ২০১৪ সালের ১১ অক্টোবর ফুটবল খেলা দেখে ঘরে ফেরার পথে স্কুলছাত্র ইসমাইলকে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে দুই দিন পর বাড়ির পাশে লক্ষ্মীপুর ধানখেতে তার লাশটি পাওয়া যায়। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির বাবা আবুল হোসেন বাদী হয়ে চান্দিনা থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে পরের বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। গত বছরের ২ জুলাই আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে এই মামলার বিচার শুরু হয়। ১৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষে আদালত এই রায় দেন। এক প্রতিবেশীর অনৈতিক সম্পর্কের কথা জেনে ফেলায় ইসমাইলকে খুন করা হয় বলে পুলিশ জানায়